প্রচ্ছদ / খেলা / ব্রডের মাইলফলক গড়ার দিনে সিরিজ ঘরে তুলল ইংল্যান্ড

ব্রডের মাইলফলক গড়ার দিনে সিরিজ ঘরে তুলল ইংল্যান্ড

স্পোর্টস ডেস্ক
টেস্ট ইতিহাসের সপ্তম এবং ইংল্যান্ডের দ্বিতীয় বোলার হিসেবে ৫০০ উইকেটের মাইলফলক স্পর্শ করেছেন স্টুয়ার্ট ব্রড। ইতিহাসে নাম লেখানোর দিনে দলের জয়েও বড় ভূমিকা রেখেছেন এই পেসার। ব্রডের অনবদ্য বোলিংয়েই ওয়েস্ট ইন্ডিজকে ২৬৯ রানের বিশাল ব্যবধানে হারিয়ে সিরিজ জিতে নিল ইংলিশরা।
করোনা বিরতির পর প্রথম আন্তর্জাতিক সিরিজ উইজডেন ট্রফির তৃতীয় ও টেস্ট ম্যাচে জিততে হলে শেষ ইনিংসে ৩৯৯ রান করতে হতো ওয়েস্ট ইন্ডিজকে। ওল্ড ট্রাফোর্ডে মঙ্গলবার (২৮ জুলাই) এই বিশাল লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে মাত্র ১২৯ রানে গুটিয়ে গেছে ক্যারিবীয়রা। এই জয়ে ২-১ ব্যবধানে সিরিজ জিতে নিয়েছে ইংল্যান্ড। এর আগে ক্যারিবিয়ানরা প্রথম ইনিংসে অলআউট হয় ১৯৭ রানে। প্রথম ইনিংসে ৩৬৯ রানের পর স্বাগতিক ইংল্যান্ড ২ উইকেটে ২২৬ রান করে দ্বিতীয় ইনিংস ঘোষণা করে। নিজেদের শেষ ইনিংসে লক্ষ্য তাড়া করতে নামা ওয়েস্ট ইন্ডিজ প্রতিপক্ষের দুই বোলার ব্রড ও ক্রিস ওকসের বোলিং তোপে অল্প রানেই গুটিয়ে যায়। দলের হয়ে সর্বোচ্চ রান আসে শাই হোপের (৩১) ব্যাট থেকে। এছাড়া দুই অংকের দেখা পেয়েছেন মাত্র ৩ ব্যাটসম্যান। ইংলিশদের হয়ে বল হাতে ৫ উইকেট নিয়েছেন ওকস, ৪ উইকেট ব্রডের।
এই সিরিজ জেতার মাধ্যমে উইজডেন ট্রফির সর্বশেষ শিরোপাটি ইংলিশদের কাছে অমর হয়ে রইলো। কারণ এরপর থেকে ইংল্যান্ড-ওয়েস্ট ইন্ডিজ দ্বিপক্ষীয় টেস্ট সিরিজকে রিচার্ডস-বোথাম ট্রফি হিসেবে অভিহিত করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। এর নামকরণ করা হয়েছে ক্যারিবীয় কিংবদন্তি স্যার ভিভিয়ান রিচার্ডস এবং ইংলিশ কিংবদন্তি স্যার ইয়ান বোথামের নামানুসারে।
পঞ্চম দিনে টেস্ট ক্রিকেট ইতিহাসে সপ্তম বোলার হিসেবে ৫০০ উইকেটের মাইলফলক স্পর্শ করেছেন স্টুয়ার্ট ব্রড। আগেরদিনই ইতিহাসের পাতায় ঢুকে যেতে পারতেন ব্রড। কিন্তু সিরিজের শেষ টেস্টটির চতুর্থদিন ভেস্তে যায় বৃষ্টিতে। মাঠে গড়ায়নি একটি বলও। তৃতীয়দিন ৩ ওভার বল করে ৮ রান খরচে ক্যারিবিয়ানদের ২ উইকেট নেন তিনি। টেস্ট ক্যারিয়ারে ৪৯৯ উইকেট নিয়ে দিন শেষ করেন তিনি। মঙ্গলবার (২৮ জুলাই) আর একটি উইকেটের প্রত্যাশায় বোলিং শুরু করে বেশিক্ষণ অপেক্ষা করতে হয়নি ব্রডকে। উইন্ডিজের দ্বিতীয় ইনিংসের ১৩.৩ ওভারে ফেরান ওপেনার ব্রাথওয়েটকে (১৯)। তালিকায় সপ্তম হলেও পেসারদের মধ্যে ৫০০ উইকেটের মাইলফলক স্পর্শ করার ক্ষেত্রে চতুর্থ অবস্থানে আছেন ব্রড। তার আগে এই চূড়া ছুঁয়েছেন ক্যারিবিয়ান কিংবদন্তি পেসার কোর্টনি ওয়ালশ, অজি কিংবদন্তি গ্ল্যান ম্যাকগ্রা ও স্বদেশি সতীর্থ জেমস অ্যান্ডারন। এছাড়া অ্যান্ডারসনের পরে ইংলিশদের মধ্যে দ্বিতীয বোলার হিসেবে এই মাইলফলকে পা রেখেছেন ব্রড।
টেস্টে প্রথমবার ৫০০ উইকেট নেওয়ার রেকর্ড গড়েন ওয়ালস। ব্রডের আগে ক্যারিবিয়ান কিংবদন্তির পদাঙ্ক অনুসরণ করেন আরও পাঁচজন। তার মধ্যে সর্বোচ্চ উইকেটশিকারীর মধ্যে তিনজনই স্পিনার। মুত্তিয়া মুরালিধরন (৮০০), শেন ওয়ার্ন (৭০৮) ও অনিল কুম্বলে (৬১৯)। এরপর আছেন পেসার জেমস অ্যান্ডারসন (৫৮৯), গ্লেন ম্যাকগ্রা (৫৬৩) ও কোর্টনি ওয়ালশ (৫১৯)। এবার সপ্তম বোলার হিসেবে যোগ হলেন ব্রড (৫০১)।
এছাড়া আরেকটি রেকর্ডও করেছেন ইংলিশ পেসার। প্রথম বোলার হিসেবে টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপে উইকেটের ফিফটি করেন তিনি। চলমান ম্যাচসহ ১১ ম্যাচে তার উইকেটে ৫৩। তার চেয়ে এক ম্যাচ কম খেলে ৪৯ উইকেট নিয়ে দ্বিতীয় স্থানে আছে অস্ট্রেলিয়ান পেসার প্যাট কামিন্স। সমান ম্যাচে ৪৭ উইকেট নিয়েতার পেছনে আছেন স্বদেশি স্পিনার নাথান লায়ন।
প্রথম টেস্টে দলে জায়গা না পেলেও শেষ দুই টেস্টে ১৬ উইকেট নিয়ে সিরিজের সর্বোচ্চ উইকেটশিকারী ব্রড। এর মধ্যে শেষ টেস্টের দুই ইনিংসেই নিয়েছেন ১০ উইকেট। এই নিয়ে টেস্ট ক্যারিয়ারে তৃতীয়বারের মতো ৪ উইকেটের দেখা পেলেন এই ডানহাতি। পাশাপাশি ইংল্যান্ডের হয়ে চতুর্থ ইনিংসে সবচেয়ে বেশি উইকেটের (৭৯) মালিকও এখন ব্রড। ১ উইকেট কম নিয়ে দ্বিতীয় স্থানে আছেন তার সতীর্থ জেমস অ্যান্ডারসন। দুর্দান্ত পারফরম্যান্সে ম্যাচ সেরা নির্বাচিত হয়েছেন ব্রড। সিরিজ সেরাও নির্বাচিত হয়েছেন তিনি। তবে এই পুরস্কার তাকে ভাগ করে নিতে হয়েছে ক্যারিবীয় অলরাউন্ডার রোস্টন চেজের সঙ্গে।
সংক্ষিপ্ত স্কোর:
ইংল্যান্ড
প্রথম ইনিংস- ৩৬৯ (ওলে পোপ ৯১, বাটলার ৬৭, ব্রড ৬২, বার্নস ৫৭; কেমার রোচ ৭২/৪, গ্যাব্রিয়েল ৭৭/২, চেজ ৩৬/২)

দ্বিতীয় ইনিংস- ২২৬/২ ডিক্লে: (বার্নস ৯০, সিবলি ৫৬, রুট ৬৮; হোল্ডার ২৪/১)

ওয়েস্ট ইন্ডিজ
প্রথম ইনিংস- ১৯৭ (হোল্ডার ৪৬, ডরউইচ ৩৭; ব্রড ৩১/৬, অ্যান্ডারসন ২৮/২)

দ্বিতীয় ইনিংস- ১২৯ (হোপ ৩১; ওকস ৫০/৫, ব্রড ৩৬/৪)

ফলাফল: ইংল্যান্ড ২৬৯ রানে জয়ী
সিরিজ: ২-১ ব্যবধানে জিতেছে ইংল্যান্ড
ম্যাচ সেরা: স্টুয়ার্ট ব্রড
সিরিজ সেরা: স্টুয়ার্ট ব্রড (ইংল্যান্ড) ও রোস্টন চেজ (ওয়েস্ট ইন্ডিজ)

About jne

Check Also

ওয়ার্নারের ক্যারিয়ার থামিয়ে দিতে পারে করোনার বিধিনিষেধ

স্পোর্টস ডেস্ক করোনাভাইরাসের লকডাউনের সময়টা টিকটক ভিডিও করে ভক্ত-সমর্থকদের বিষণ্ণ সময়টা মাতিয়ে রাখার চেষ্টা করেছেন …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *