প্রচ্ছদ / প্রতিনিধিদের পাঠানো খবর / দুই ঘণ্টার বৃষ্টিতেই খুলনায় জলাবদ্ধতা!

দুই ঘণ্টার বৃষ্টিতেই খুলনায় জলাবদ্ধতা!

খুলনা প্রতিনিধি
মাত্র দুই ঘণ্টার বৃষ্টিতে তলিয়ে গেছে খুলনার প্রধান সড়ক থেকে শুরু করে গলিরপথ। দেখা দিয়েছে জলাবদ্ধতা। এতে চরম দুর্ভোগে পড়েছেন পথচারীরা। দুর্বল ড্রেনেজ সিস্টেম ও বর্জ্য ব্যবস্থাপনার সমন্বয়হীনতার কারণেই এমন অবস্থা অভিযোগ নাগরিকদের। আবার কেউ কেউ বলছেন, আধুনিক ড্রেন নির্মাণের কাজ ধীরগতিতে চলায় এ অবস্থার সৃষ্টি হয়েছে। মঙ্গলবার (২৮ জুলাই) দুপুর ১২ টা থেকে শুরু হওয়া মুষলধারায় বৃষ্টি চলে ২টা পর্যন্ত। বৃষ্টি থামার পর নগরীজুড়ে জলাবদ্ধতার সৃষ্টি হয়। এমন জলাবদ্ধতায় দুর্ভোগে পড়েন অফিসফেরত মানুষ, পথচারী ও যানবাহন চালকেরা।
ভুক্তভোগী এক ব্যক্তি জানান, পানির জন্য হাঁটা যায় না। রাস্তায় চলাফেরা করা অনেক কষ্ট হচ্ছে। প্রতি বর্ষায় নগরীর এমন জলাবদ্ধতার জন্য খুলনা সিটি করপোরেশনকে দায়ী করেছেন তিনি। তার মতো বেশ কয়েকজন পথচারী জানান, একটু বৃষ্টি হলে জলাবদ্ধতার সৃষ্টি হয়। মানুষ চলতে পারে না। রাস্তায় গাড়ি বন্ধ হয়ে যায়। রিকশা ও ইজিবাইক চলাচল বন্ধ হয়ে যায় পানির তোড়ে।
ভারী বৃষ্টিতে মহানগরীর সাতরাস্তার মোড়, দোলখোলা, মুজগুন্নী বাস্তুহারা, সোনাডাঙ্গা আবাসিক এলাকার প্রথম ফেজ, গোবরচাকা, নবীনগর, বয়রা,শামসুর রহমান রোড, কেডিএ এভিনিউ এলাকার অধিকাংশ ভবনের নিচতলায় পানি প্রবেশ করেছে। ড্রেনের পানি নিষ্কাশন না হওয়ায় মহানগরীর শান্তিধাম মোড়, রয়্যালের মোড়, পূর্ব বানিয়াখামার, পিটিআই, নিরালা, দোলখোলা, বাগমারা, মিস্ত্রিপাড়া, বাইতিপাড়া, খানজাহান আলী রোড, রূপসা স্ট্যান্ড রোড, খালিশপুর, দৌলতপুরসহ বিভিন্ন এলাকার সড়ক হাঁটু পানিতে তলিয়ে গেছে। খুলনা আঞ্চলিক আওহাওয়া অফিসের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা সিনিয়র আবহাওয়াবিদ আমিরুল আজাদ বলেন, খুলনায় দুপুর ১২টা থেকে ২টা পর্যন্ত প্রায় দুই ঘণ্টার ভারী থেকে অতিভারী বর্ষণ হয়েছে। এসময়ের মধ্যে মোট ৩৯ মিলিমিটার বৃষ্টিপাত রেকর্ড করা হয়েছে। যা এবারের বর্ষা মৌসুমে স্বল্পসময়ে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ রেকর্ড।

About jne

Check Also

ফেসবুকের মাধ্যমে অর্থ সংগ্রহ করে সাংবাদিক আয়শা আকাশী মাদারীপুরে বিধবাকে ঘর তুলে দিচ্ছেন

এসএম আরাফাত হাসান : শুভসংঘ মাদারীপুর জেলা শাখার আয়োজনে সাংবাদিক আয়শা সিদ্দিকা আকাশীর উদ্যোগে একজন …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *