প্রচ্ছদ / কর্পোরট / ১০ লাখ পোশাককর্মীকে কম দামে পণ্য দেবে ইউনিলিভার

১০ লাখ পোশাককর্মীকে কম দামে পণ্য দেবে ইউনিলিভার

কর্পোরেট ডেস্ক
বাংলাদেশের রপ্তানি আয়ের প্রধান খাত তৈরি পোশাক শিল্পের দশ লাখ কর্মীকে কম দামে পণ্য সরবরাহ করবে ইউনিলিভার বাংলাদেশ। পোশাক শিল্প মালিকদের শীর্ষ সংগঠন বিজিএমইএ এবং ইউনিলিভারের সঙ্গে এ বিষয়ে একটি চুক্তি হয়েছে। চুক্তির আওতায় ১০ লাখেরও বেশি পোশাককর্মীর স্বাস্থ্য সুরক্ষার পাশাপাশি জীবনমান উন্নয়নের জন্য একসঙ্গে কাজ করবে বিজিএমইএ এবং ইউনিলিভার। যৌথ এ উদ্যোগটির নাম হচ্ছে ‘আস্থা’। এ প্রসঙ্গে বিজিএমইএ’র সভাপতি রুবানা হক বুধবার বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, “এটি একটা ভালো উদ্যোগ। পোশাককর্মিদের ভাগ্যের উন্নয়নে একসঙ্গে কাজ করব আমরা।”
“ইউনিলিভার তাদের উৎপাদিত সাবান, শ্যাম্পুসহ নানা ধরনের প্রসাধনী কম দামে পোশাককর্মিদের কাছে বিক্রি করবে। এছাড়া স্বাস্থ্য সুরক্ষার জন্য তাদের বিভিন্ন ধরনের ট্রেনিংও দেবে তারা।” এতে পোশাককর্মিরা উপকৃত হবে বলে জানান রুবানা হক।
এদিকে ইউনিলিভারের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে, বাংলাদেশের সর্ববৃহৎ এমএমসিজি কোম্পানি ইউনিলিভার বাংলাদেশ এবং বিজিএমইএ পোশাক শিল্পে জড়িত কর্মিদের জীবনের উন্নতির লক্ষ্যে আগামী ৩ বছর কাজ করার জন্য চুক্তিবদ্ধ হয়েছে। এছাড়াও ইউনিলিভার পোশাক কারখানার কর্মিদের জন্য কারখানার ভেতরে দোকানে (কারখানার নিজস্ব অথবা থার্ড পার্টির মালিকানাধীন) বিশেষ মূল্যে ইউনিলিভারের পণ্যের ব্যবস্থা করা হবে বলে বিচ্ঞপ্তিতে উল্লেখ করা হয়েছে।
ইউনিলিভার বাংলাদেশের পক্ষ থেকে চুক্তিতে সই করেন প্রতিষ্ঠানটির সিইও ও ম্যানেজিং ডিরেক্টর কেদার লেলে এবং বিজিএমইএ‘র পক্ষে সংগঠনটির সভাপতি রুবানা হক। চুক্তির আওতায় প্রতিষ্ঠান দুটি বাংলাদেশে টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা (এসডিজি) অর্জনে একসঙ্গে কাজ করবে। সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, এসডিজির ১৭টি লক্ষ্যের মধ্যে ৪টি (এসডিজি ৩, ৬, ১২ এবং ১৭) লক্ষ্য বাস্তবায়নের উদ্দেশ্য এই উদ্যোগ পরিচালিত হবে।

এসডিজি ৩: সকল বয়সী সকল মানুষের জন্য সুস্বাস্থ ও কল্যান নিশ্চিত করা।

এসডিজি ৬: সকলের জন্য পানি ও স্যানিটেশনের টেকসই ব্যবস্থাপনা ও প্রাপ্যতা নিশ্চিত করা।

এসডিজি ১২: পরিমিত ভোগ ও টেকসই উৎপাদন নিশ্চিত করা

এসডিজি ১৭: বৈশ্বিক অংশিদারিত্ব উজ্জীবিতকরণ ও বাস্তবায়নের উপায়সমূহ শক্তিশালী করা।

চুক্তি সই অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রীর মুখ্যসচিব নজিবুর রহমান প্রধান অতিথি ছিলেন। বিশেষ অতিথি ছিলেন ঢাকায় নিযুক্ত ব্রিটিশ হাইকমিশনার রবার্ট চ্যাটার্টন ডিকসন, ডাচ রাষ্ট্রদূত হ্যারি ভারওয়ে, ইউনিলিভার সাউথ এশিয়ার সভাপতি সান্জীভ মেহতা।

বাংলাদেশের পোশাক শিল্পে ৪০ লাখের বেশি কর্মি কাজ করে। যাদের বেশিরভাগই নারী। জিডিপিতে (অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি) এ শিল্পের অবদান ১১ শতাংশ।

About arthonitee

Check Also

অর্থ পাচার প্রতিরোধে ব্র্যাক ব্যাংকের কর্মশালা

কর্পোরেট ডেস্ক অর্থ পাচার প্রতিরোধে কর্মকর্তাদের নিয়ে কর্মশালা করেছে ব্র্যাক ব্যাংক। সম্প্রতি ময়মনসিংহে ‘প্রিভেনশন অব …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *