প্রচ্ছদ / প্রতিনিধিদের পাঠানো খবর / আমার সনদ ভুয়া নাকি সঠিক তাতে সাংবাদিকের কি?

আমার সনদ ভুয়া নাকি সঠিক তাতে সাংবাদিকের কি?

সুনান বিন মাহাবুব (পটুয়াখালী): আনসার বাহিনীতে ভুয়া কাগজপত্র ও জাল সনদ ব্যবহার করে ৩১ বছর উপজেলা মহিলা প্রশিক্ষিকা পদে চাকরি করছেন তানজিমা বেগম। পটুয়াখালী জেলা আনসার বাহিনীতে এমন ঘটনা ঘটেছে বলে অভিযোগ রয়েছে। তানজিমা বেগম বর্তমানে পটুয়াখালী জেলা দশমিনা উপজেলার আনসার ভিডিপি কার্যালয়ে কর্মরত আছেন। আনসার ভিডিপির মহাপরিচালকের কাছে লিখিত অভিযোগের মাধ্যমে জানা গেছে চাকুরির নিয়োগপত্রের স্মারক নং- টি/১৯৭০/আনস/তাং ২৬.১১.১৯৮৮ তার নাম তাছলিমা খাতুন, জন্ম তারিখ ০১.০১.১৯৭৪ ইং গত ২২.১১.১৯৮৮ সালে মহিলা প্রশিক্ষিকা পদে যোগদান করেন। ১৯৯০ সালে এসএসসি পাশ করেন। তার শিক্ষা সনদে ১/১/১৯৭৪ সাল উল্লেখ করা হয়। চাকরিতে যোগদানের সময় তার বয়স ছিলো ১৪ বছর ১০ মাস। একই ব্যাক্তি বর্তমানে তাসলিমা খাতুন নাম পরিবর্তন করে তানজিমা বেগম নামে চাকরি করছেন। জেলা আনসার কার্যালয়ে তার যোগদানের সময় নাম ছিলো তাসলিমা খাতুন। ১৯৮৮ সাল থেকে ২০০৫ সাল পর্যন্ত এই নামেই বেতন ভাতা গ্রহন করেন। ২০০৮ সাল থেকে ২০১৯ সাল পর্যন্ত তানজিমা খাতুন নামে বেতন ভাতা গ্রহন করেন। তিনি বাউফল উপজেলায় কেশবপুর ইউনিয়নে ৪,৫,৬ নং ওয়ার্ডে মহিলা মেম্বার পদে নির্বাচন করেছেন এবং নির্বাচিত হয়ে উক্ত পদে ১০ বছর কাজ করছেন। তার বহু ছদ্ম নাম আছে। এসব বিষয়ে সাংবাদিকরা মুঠো ফেনে কথা বললে সাংবাদিকদের বলেন , আমার সনদ জাল নাকি সঠিক তাতে সাংবাদিকের কি? এসব ব্যাপার অফিস বুঝবে, আমি অফিসের সাথে বুঝব। এ বিষয়ে জেলা আনসার কার্যালয় কমান্ডার মোল্লা আবু সাইদ জানান, এ বিষয়ে লিখিত অভিযোগ রয়েছে এবং তদন্ত চলছে।

About arthonitee

Check Also

আমরা কুমিল্লার সন্তান হোয়াটস অ্যাপ গ্রুপের পক্ষ থেকে সহায়তা

আজ কুমিল্লা জেলার সদর দক্ষিণ উপজেলার সিন্ধুয়া চৌমুহনীতে আমরা কুমিল্লার সন্তান হোয়াটস অ্যাপে গ্রুপের পক্ষ …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *