প্রচ্ছদ / ব্যাবসা-বাণিজ্য / ভ্যাট আইন বাস্তবায়নে ব্যাবসায়ীদের সঙ্গে আর দূরত্ব নেই-অর্থমন্ত্রী

ভ্যাট আইন বাস্তবায়নে ব্যাবসায়ীদের সঙ্গে আর দূরত্ব নেই-অর্থমন্ত্রী

মূল্য সংযোজন কর বা ভ্যাট আইন বাস্তবায়ন নিয়ে ব্যবসায়ীদের আর কোনো আপত্তি নেই। ভ্যাট আইন বাস্তবায়ন নিয়ে ব্যবসায়ীদের সঙ্গে কিছুটা ভুল বোঝাবুঝি হয়েছিল; সেটি পুরোপুরি কেটে গেছে। আসছে বাজেটে কোনো পণ্যে ভ্যাটের হার বাড়বে না বরং কমবে। আইনগতকারনে ভ্যাট আইনের সব তথ্য এখন প্রকাশ সম্ভব নয়, তবে আইনে ব্যবসায়ীদের জন্য ক্ষতিকর নয় বরং ব্যবসায়ী বান্ধব আইন হবে। ফলে সেটাবোঝানোর পর ব্যবসায়ীরা আশ্বস্ত হয়েছেন। যার ফলে এনবিআর-এর সঙ্গেব্যবসায়ীদের কোনো দূরত্ব নেই বলেজানান অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল।মঙ্গলবার (১৪ মে) শেরে বাংলানগরেঅর্থমন্ত্রণালয়ের সভা কক্ষে জাতীয় রাজস্ব বোর্ড ও এফবিসিসিআই-এর সাথে বৈঠক শেষে মাননীয় অর্থমন্ত্রী এসব কথাবলেন।

মাননীয় মন্ত্রী আরো বলেন, ভ্যাটআইন বাস্তবায়ন দু একদিনের কাজ নয়, এটি একটি চলমান প্রক্রিয়া অর্থাৎ এটাসময়ের সঙ্গে সঙ্গে পরিবর্তনযোগ্য। ভ্যাটআইন বাস্তবায়নের পরও যদি কোথাওকোনো সীমাবন্ধতা দেখা দেয় তাহলে তাজনবান্ধব ও ব্যবসাবান্ধব করতেপরিবর্তন করে সময়োপযোগী করা হবে।ভ্যাট আইন স্বচ্ছতার সঙ্গেঝামেলাহীনভাবে আসছে পহেলা জুলাইথেকেই বাস্তবায়ন করা হবে। এই বিষয়েব্যবসায়ীরা সর্বাত্বক সহযোগিতা করবেবলে আশ্বস্ত করেছেন।

ভ্যাট প্রসঙ্গে অর্থমন্ত্রী বলেন, কোনোপণ্যে ভ্যাট বাড়বে না বরং কমবে। তবেভ্যাটের আওতা বাড়বে। সবকিছু জনবান্ধব আর দেশের অগ্রগতির লক্ষে সুন্দরভাবে করা হবে। ভ্যাট দিতে কেউকষ্ট পাবে না,সব কিছুই করা হবে উইনউইন অবস্থানে। কোন পণ্যে কি হারে ভ্যাট বসবে ব্যবসায়ীরা তা আমাদের কাছে জানতে চেয়েছে। আমরা তাদেরকে বলেছি, বিদ্যমান যেসব আইন আছে, তাতে বাজেট ঘোষণার আগ পর্যন্ত কোন পণ্যে কত শতাংশ হারে ভ্যাট বসবে, সে তথ্য প্রকাশের কোনো নিয়ম নেই। বাজেট ঘোষণার আগে এসব তথ্য প্রকাশ করা যায় না।

জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের (এনবিআর)চেয়ারম্যান মোশাররফ হোসেন ভূঁইয়াবলেন, ভ্যাট আইন বাস্তবায়নে কোনো সমস্যা থাকলে তা পরবর্তীতে সংশোধন ও পরিবর্তনের সুযোগ রয়েছে। নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে ভ্যাট আইন বাস্তবায়নে সকলের সহযোগিতা আমাদের কাম্য। ভ্যাট আইন সংস্কারে এফবিসিসিআই ও এনবিআরের যৌথ উদ্যোগে একটি ওয়ার্কিং গ্রুপ করা হবে। যারা ভ্যাট আইন সংস্কারে ভবিষ্যতে কাজ করবে। বৈঠকে এফবিসিসিআই-এর সভাপতি সফিউল ইসলাম মহিউদ্দিনঅর্থমন্ত্রীর উপর আস্থা ও বিশ্বাস রেখেবলেন, দেশটা আমাদের সবার। দেশেরউন্নয়নে আমরা অর্থমন্ত্রীর পাশে আছি।উনি আমাদের বলেছেন কোনো পণ্যেট্যাক্স বৃদ্ধি পাবে না। তবে ট্যাক্সের আওতাআরো বাড়বে। ভ্যাটের কারণে পণ্যেরদাম বাড়ুক এটা অর্থমন্ত্র্যী চান না।

সভায় আরো উপস্থিত ছিলেনফেডারেশন অব বাংলাদেশ চেম্বার অবকমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রির (এফবিসিসিআই)নব নির্বাচিত সভাপতি শেখ ফজলেফাহিম, বিজিএমেএ-এর সাবেক সভাপতিসিদ্দিকুর রহমান প্রমূখ। উল্লেখ্য যে, আগামী পহেলা জুলাইথেকে বাস্তবায়ন হতে যাওয়া ভ্যাট আইননিয়ে সরকার ব্যবসায়ীদের সঙ্গে কোনোআলোচনা করছে না বলে অভিযোগ করেআসছে ব্যবসায়ীরা। একই সঙ্গে কোনপণ্যে কত শতাংশ ভ্যাট বসবে তা নিয়েওঅস্পষ্টতা রয়েছে বলে গত কয়েকদিনধরে বলে আসছেন ব্যবসায়ী প্রতিনিধিরা।বিষয়টি সুরাহা করতে অর্থমন্ত্রী ওএনবিআর চেয়ারম্যান বরাবর চিঠিওদেওয়া হয়েছিল ব্যবসায়ীদের তরফথেকে। এমন বাস্তবতায় আজ ব্যবসায়ীপ্রতিনিধিদের সঙ্গে বৈঠকে বসেন মাননীয় অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল।

About arthonitee

Check Also

এফবিসিসিআইয়ের নতুন সভাপতি শেখ ফজলে ফাহিম

নিজস্ব প্রতিবেদক ব্যবসায়ীদের শীর্ষ সংগঠন বাংলাদেশ শিল্প ও বণিক সমিতি ফেডারেশনের (এফবিসিসিআই) ২২তম সভাপতি হিসেবে …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *