প্রচ্ছদ / ভোগান্তি / মেধাবী ছাত্রী পপি বাঁচতে চায়

মেধাবী ছাত্রী পপি বাঁচতে চায়

 

নুর উদ্দিন সুমন (হবিগঞ্জ):
শিক্ষা সংগ্রামে বিজয়ী এক মেধাবী ছাত্রী আজ বেঁচে থাকার সংগ্রামে পরাস্থ প্রায়। দুরারোগ্য ক্যান্সারে আক্রান্ত। এ অবস্থায় মেধাবী ছাত্রীর বেঁচে থাকার এক মাত্র অবলম্বন বিত্তবানদের আর্থিক সহায়তা । পপির শারীরিক অবনতি ঘটছে। চিকিৎসার অভাবে পেটের ভিতর পানি জমে গেছে। অর্থের অভাবে নিজ কুটিরে যন্ত্রণায় দিন কাটছে পরিবারসহ এই শিক্ষার্থীর। গত কিছুদিন পূর্বে পপির শরীর থেকে তিন লিটার পানি বের করা হয়েছে। এখন অর্থের অভাবে তার ব্যয়বহুল চিকিৎসা বন্ধ হয়ে গেছে। বিগত ২০১৫ হতে এই পর্যন্ত সরকারি, বেসরকারি বিভিন্ন সাহায্য সহযোগিতায় পপির চিকিৎসা চলে আসছিল। এ পর্যন্ত প্রায় ৬ লক্ষ টাকা ব্যয় করা হয়েছে বলে তার মা জানান। কিন্তু এখনো পপির চিকিৎসা সম্পুর্ণ হয়নি। বর্তমানে তার চিকিৎসার জন্য কোনো অর্থকড়ি নেই। বর্তমানে পপির উন্নত চিকিৎসার জন্য বড় অংকের সাহায্যের প্রয়োজন নতুবা মৃত্যু অবধারিত হবিগঞ্জ বৃন্দাবন কলেজের অনার্স ব্যবসা শাখার প্রথম বর্ষের ছাত্রী পপি আক্তার। পপি বাহুবল উপজেলার মিরপুর ইউনিয়নের আব্দুল মান্নান ও মাতা জরিনা খাতুনের মেয়ে পপি আক্তার। বাবা মায়ের স্বপ্ন ছিল মেয়ে উচ্চ শিক্ষিত হয়ে তাদের মুখ উজ্জল করবে। বাবা মায়ের স্বপ্ন পুরণের প্রায় শেষ মুহূর্তে এসে দুরাবোগ্য রোগে আক্রান্ত হয় পপি। বাবা জমিজমা বিক্রি করে মেয়ের চিকিৎসা করে আজ দিশাহীন। দেশীয় চিকিৎসকরাও প্রায় ব্যর্থ। পপি ঢাকা আহমদ মেডিকেল ক্যান্সার হাসপাতালে চিকিৎসা দিন । আহমেদ মেডিকেল ক্যান্সার হাসপাতাল ডা:প্রফেসর পারভিন শাহিদা আক্তার জানান, পপিকে বাঁচাতে হলে তাকে দেশের বাহিরে চিকৎসা করানো জরুরি। যার ব্যয় হবে প্রায় ১০ লাখ টাকা এবং দেশে এ চিকিৎসা অসম্ভব। একমাত্র বিদেশেই এই চিকিৎসা সম্ভব। বিশাল এ ব্যয় ভার বহন করা দরিদ্র পরিবারের পক্ষে সম্ভব না। তাই পপিকে বাঁচানোর জন্য নিরুপায় পরিবারটি সরকারসহ বিত্তবান ব্যক্তিদের কাছে মানবিক সাহায্য কামনা করছেন। পপিকে সাহায্য পাঠাবার ঠিকানা। ফোন নাম্বার :বড় ভাই ০১৭৪১২৯৯৫১০।

About arthonitee

Check Also

টয়োফিড কোম্পানীর চেক প্রতারনার ফাঁদে বাগেরহাটের দুই ব্যবসায়ী

নকীব মিজানুর রহমান (বাগেরহাট): মুরগী ও মাছের খাবার উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠান টয়োফিড লিঃ (ডিজি ফিড) কোম্পানীর …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *