শিরোনাম
প্রচ্ছদ / মিডিয়া কর্নার / মাদকের আগ্রাসন এখন সর্বগ্রাসী

মাদকের আগ্রাসন এখন সর্বগ্রাসী

gausul

রাত ১০.০ টা মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করে ফিরছিলাম বাসায় । রমনা পার্কের অরুনোদয় গেট তখনও খোলা । কর্মব্যস্ত কিছু মানুষ তখনও দৌড়, হাঁটাসহ শরীর চর্চায় ব্যস্ত । কেউ বা শেষ করে বের হয়ে যাচ্ছেন পার্ক থেকে । কিছুক্ষণ হাঁটাহাঁটি করে বাসায় ফিরবো , রাত্রিকালীন পার্কের পরিবেশ কেমন তাও দেখা হবে ভেবে পার্কে প্রবেশ করলাম |কিছুক্ষণ হাঁটার পরে গাঁজার তীব্র গন্ধ পাওয়া গেল ।একটা বেঞ্চের উপর দু’জন বসে সিগারেটে ভরে গাঁজা খাচ্ছিল । সাথে সিগারেটের প্যাকেটে আরো দুটো সিগারেটে গাঁজা ভর্তি । মুখের দুর্গন্ধ দূর করার স্প্রে , ই-সিগারেট পাওয়া গেল ।পরিবারের সদস্যরা যেন বুঝতে না পারে সে জন্য গাঁজা খাওয়ার পরে মুখে স্প্রে করে বাসায় প্রবেশ করতেন । দু ‘জনের একজন উত্তরা আধুনিক মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের ইন্টার্ণী চিকিৎসক এবং অন্যজন শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে হতে সদ্য পাশ করা একজন ছাত্র । অভিযুক্ত দুজনের পিতা মাতা এবং পরিবারের সদস্যদের সাথে যোগাযোগ করতে পারছিলাম না । বাবা মা বেঁচে নাই ।আপনজন ও কেউ নেই ঢাকাতে এসব মিথ্যা তথ্য দিচ্ছিল দুজন । শেষে অনেক কস্টে পরিবারের সদস্যদের পাওয়া গেল । তারা ঘটনাস্হলে আসলেন ।অভিযুক্ত একজন ডা: এর পিতা একজন সদ্য অবসরপ্রাপ্ত উচ্চপদস্থ কর্মকর্তা । রমনা পার্কে এসে ছেলের এমন কান্ডে হতবাক তিনি । দুজনকে দোষ স্বীকারোক্তির ভিত্তিতে এবং আর মাদক সেবন করবেন না অঙ্গীকার করায় পরিবারের সদস্যদের কাছে তুলে দেয়া হলো । তাদের প্রত্যেকে কে ৫০০০ টাকা করে জরিমানা করা হয় ।
মাদকের আগ্রাসন এখন সর্বগ্রাসী । আসুন আমাদের পরিবারের সদস্যদের আমরা মাদকমুক্ত রাখি । প্রতিটি ঘর ও পরিবার মাদকমুক্ত হোক ।
অভিযুক্তদের নাম ও ছবি প্রকাশ করা হলো না । একজন ডা: ছেলের বাবা মাথা নীচু করে সবার সামনে নির্বাক দাড়িয়ে থাকা সহ আজকের এসব দৃশ্য দেখে সত্যিই খারাপ লেগেছে ।
পুনশ্চ : অনেকে তাঁদের মন্তব্যে কেন হাতে নাতে গ্রেফতারকৃত গাঁজা সেবনকারী চিকিৎসক কে কারাদন্ড না দিয়ে জরিমানা করা হলো এবং নাম ও ছবি প্রকাশ করা হলো না বলেছেন । আইন সবার জন্য সমান তাও আমরা জানি । তারপরেও কারাদন্ড প্রদান , জরিমানা বা মাদক নিরাময় কেন্দ্রে প্রেরণ সবই আইনানুগ পদ্ধতি । আমরা আইনের মধ্যে থেকেছি । তরুন চিকিৎসক আটকের পরপরই ক্ষমা প্রার্থনা করেন । তার পরিবারের সদস্যদের আচরণ ছিল খুবই মার্জিত । আমরা আশাকরি তরুন চিকিৎসক তার অঙ্গীকার অনুযায়ী মাদক এর পথ থেকে ফিরে আসবেন এবং নিশ্চিত কারাদন্ড হতে রেহাই পাওয়ায় সর্বোচ্চ পেশাদারিত্ব ও আন্তরিকতার মাধ্যমে সাধারণ মানুষ কে চিকিৎসা সেবা প্রদান করে তাদের কে কৃতজ্ঞতার বন্ধনে আবদ্ধ করবেন ।

(সুশাসন প্রতিষ্ঠায় নিবেদিতপ্রাণ বিচারক জনাব গাউছুল আজম এর ফেসবুকওয়াল থেকে সংগ্রহীত)

About arthonitee

Check Also

q

লালমাই প্রেস ক্লাবের উদ্যোগে বিশ্ব ক্রীড়া সাংবাদিক দিবস পালিত

গত ২ জুলাই বিশ্ব ক্রীড়া সাংবাদিক দিবস উপলক্ষে কুমিল্লা জেলার নবগঠিত লালমাই উপজেলায় লালমাই প্রেস …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *