প্রচ্ছদ / শেয়ার বাজার / শেয়ারবাজারে মূল্য সংশোধন

শেয়ারবাজারে মূল্য সংশোধন

নিজস্ব প্রতিবেদক
টানা চার কার্যদিবস ঊর্ধ্বমুখী থাকার পর মঙ্গলবার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই) এবং চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জের (সিএসই) সবকটি মূল্য সূচকের পতন হয়েছে। তবে উভয় বাজারে বেড়েছে লেনদেনের পরিমাণ।
বিশেষজ্ঞরা বলছেন, এ দরপতন স্বাভাবিক। এটি স্বাভাবিক মূল্য সংশোধন। টানা চার কার্যদিবস উত্থানের কারণে অনেক কোম্পানির শেয়ার দাম বেশ বেড়ে গেছে। এ কারণে বিনিয়োগকারীদের একটি অংশের হাতে থাকা শেয়ার বিক্রি করে দিয়েছেন। আর বিক্রির চাপ বাড়ায় মূল্য সূচকের কিছুটা পতন হয়েছে।
মূল্য সূচকের পাশাপাশি মঙ্গলবার উভয় বাজারে লেনদেন হওয়া বেশিরভাগ প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিটের দাম কমেছে। ডিএসইতে লেনদেন হওয়া ১২২টি প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিটের দাম আগের দিনের তুলনায় বেড়েছে। বিপরীতে দাম কমেছে ১৮৪টির। আর দাম অপরিবর্তিত রয়েছে ৩২টির।
দিনের লেনদেন শেষে ডিএসইর প্রধান মূল্য সূচক ডিএসইএক্স আগের দিনের তুলনায় ১৯ পয়েন্ট কমে ৫ হাজার ৮৫৯ পয়েন্টে দাঁড়িয়েছে। অপর দু’টি মূল্য সূচকের মধ্যে ডিএসই-৩০ আগের দিনের তুলনায় ১১ পয়েন্ট কমে ২ হাজার ১৯৫ পয়েন্টে অবস্থা করছে। আর ডিএসই শরিয়াহ সূচক ২ পয়েন্ট কমে দাঁড়িয়েছে ১ হাজার ৩৬০ পয়েন্টে।

বাজারে লেনদেন হয়েছে ৭১০ কোটি ৯৬ লাখ টাকা। আগের দিন লেনদেন হয় ৬৯১ কোটি ৫২ লাখ টাকা। সে হিসাবে আগের দিনের তুলনায় লেনদেন বেড়েছে ১৯ কোটি ৪৪ লাখ টাকা।

বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনের (বিএসইসি) সাবেক চেয়ারম্যান মির্জ্জা আজিজুল ইসলাম বলেন, টানা উত্থানের পর কিছুটা মূল্য সংশোধন হওয়া স্বাভাবিক। এতে বিনিয়োগকারীদের ভয় পাওয়ার কিছু নেই।

ডিএসইর সাবেক পরিচালক শাকিল রিজভী বলেন, এটি স্বাভাবিক দরপতন। এ দরপতনের মাধ্যমে বাজারে কিছুটা মূল্য সংশোধন হয়েছে। এটি শেয়ারবাজারের স্বাভাবিক প্রক্রিয়া।

মঙ্গলবার টাকার অঙ্কে ডিএসইতে সব থেকে বেশি লেনদেন হয়েছে বেক্সিমকো’র শেয়ার। কোম্পানিটির ৫৩ কোটি ৭৫ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে। লেনদেনে দ্বিতীয় স্থানে থাকা ব্র্যাক ব্যাংকের ৩০ কোটি ১২ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে। ২৯ কোটি ২১ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেনে তৃতীয় স্থানে রয়েছে কেয়া কসমেটিক।

লেনদেনে এরপর রয়েছে- ইউনিক হোটেল, আলিফ ইন্ডাস্ট্রিজ, জেনারেশন নেক্সট, মুন্নু সিরামিক, গ্রামীণ ফোন, মার্কেন্টাইল ব্যাংক এবং ইফাদ অটোস।

অপর শেয়ারবাজার চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জের সার্বিক মূল্য সূচক সিএসসিএক্স ৪১ পয়েন্ট কমে ১০ হাজার ৯৩৩ পয়েন্টে অবস্থান করছে। বাজারে লেনদেন হয়েছে ৪৫ কোটি ২৩ লাখ টাকা। লেনদেন হওয়া ২৫২টি প্রতিষ্ঠানের মধ্যে ৮১টির দাম বেড়েছে। বিপরীতে দাম কমেছে ১৪৬টির। আর দাম অপরিবর্তিত রয়েছে ২৫টির।

About jne

Check Also

‘বিশ্ব বিনিয়োগকারী সপ্তাহ’ উদযাপন করবে বিএসইসি

নিজস্ব প্রতিবেদক আগামী ৭-১০ অক্টোবর বিশ্ব বিনিয়োগকারী সপ্তাহ উদযাপন করবে বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *