প্রচ্ছদ / প্রতিনিধিদের পাঠানো খবর / পিরোজপুরে হিন্দু ডাক্তার পরিবারকে অপহরণ, নির্যাতন করে ক্লিনিক দখল

পিরোজপুরে হিন্দু ডাক্তার পরিবারকে অপহরণ, নির্যাতন করে ক্লিনিক দখল

pirojpu_b-620x330

পিরোজপুরে একটি ক্লিনিক মালিক এক চিকিৎসক ও তার পরিবারের সদস্যদের অপহরণ করা হয়েছে। এছাড়াও মধ্যযুগীয় কায়দায় অকথ্য নির্যাতন করে ক্লিনিক দখলের ঘটনা ঘটেছে।

পিরোজপুর-১ আসনের সংসদ সদস্য এবং হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদের হস্থক্ষেপে উদ্ধার পাওয়ার ৫ দিন পর অপহরণ ঘটনায় পিরোজপুর সদর থানায় একটি মামলা হয়েছে।

মামলার বাদী ওই চিকিৎসকের স্ত্রী পিরোজপুর সরকারি সোহরাওয়ার্দী কলেজের উপাধ্যক্ষ অধ্যাপক গীতা রানী। এতে প্রধান আসামি ব্যবসায়ী ওবায়দুল হক পিন্টু। এ মামলায় ৩০/৪০ জন অজ্ঞাত আসামি রয়েছে।

শহরের বাইপাস সড়কস্থ সার্জিকেয়ার ক্লিনিক অ্যান্ড ডায়াগনিস্টক সেন্টারের মালিক ডা. বিজয় কৃষ্ণ হালদার, তার মা, স্ত্রী ও কলেজপড়ুয়া মেয়ে গত ২১ মার্চ অপহৃত হন। এদিন গভীর রাতে একদল দুর্বৃত্ত সিনেমার শ্যুটিং করার কথা বলে ক্লিনিকে ঢুকে তাদেরকে প্রথমে মারপিট করে পরে চোখ ও হাত-পা বেঁধে শহরতলীর একটি নির্জন বাড়িতে রেখে আসে।

পরে সেখানকার লোকজন তাদেরকে উদ্ধার করে শহরের পাল পাড়ায় তাদের এক আত্মীয়ের বাসায় পৌঁছে দেয়। ইতোমধ্যে ওই ক্লিনিকসহ ভবনের সম্পূর্ণ মালিকানা দাবি করে স্থানীয় একটি প্রভাবশালী মহল সম্পূর্ণ দখল করে নেয়। এ মতাবস্থায় ক্লিনিক মালিক হিন্দু সম্প্রায়ের বিধায় প্রান ভয়ে নিশ্চুপ থাকেন।

ঘটনাটি স্থানীয় সংসদ সদস্য এ কে এম এ আউয়াল জানতে পেরে পালপাড়ার আত্মীয়ের বাসা থেকে ডা. বিজয় ও তার পরিবারকে ক্লিনিক ভবনের বাসায় ফিরিয়ে আনেন এবং ঘটনার ৫ দিন পর এমপির হস্তক্ষেপে পুলিশ থানায় মামলা নেয়।

ক্লিনিকটির মালিক বিজয় কৃষ্ণ হালদারের স্ত্রী পিরোজপুর সরকারি সোহরাওয়ার্দী কলেজের উপাধ্যক্ষ গীতা রাণী মজুমদার জানান, ২২ মার্চ রাত ২টার দিকে মুখে কাপড় বাঁধা ৪০ জনের একটি সশস্ত্র সন্ত্রাসী বাহিনী হঠাৎ করে তাদের ক্লিনিকের ৫ম তলার ঘরে প্রবেশ করে। এর আগে ক্লিনিকের দুই কর্মচারী ঘরের দরজা খুলে দিতে বলে তারা জানায় সিনেমার শুটিংয়ের লোকেরা এসেছে, তাই ঘর খুলে দিতে হবে। এর আগেও সিনেমার নায়ক জায়েদ খান মনু অভিনিত ‘অন্তরজালা’ সিনেমার শুটিং হওয়ায় তাদের কথা বিশ্বাস করে দরজা খুলে দেই। কিন্তু ভেতরে তারা অস্ত্রশস্ত্রসহ প্রবেশ করে আমাদের মার-ধোর শুরু করে। আমার বৃদ্ধ শাশুড়ি এবং আমাকেও মারে। আমার মেয়েকেও মারে। এরপর কালো কাপড় দিয়ে বেঁধে শহর থেকে দূরে ঝাটকাঠি এলাকার একটি পরিত্যক্ত বাড়িতে ফেলে আসে। পরে সেখানকার লোকজন আমাদের উদ্ধার করে শহরের পালপাড়ায় আমার ভাইয়ের বাসায় দিয়ে যায়।

এ সময় ওই বিভৎস ঘটনার বর্ণনা দিতে গিয়ে কলেজপড়ুয়া মেয়ে অনন্যা হালদার বলেন, ঘরে ঢুকে সন্ত্রাসীরা আমার মাথায় পিস্তল ঠেকিয়ে দুই হাত বেঁধে মারপিট করে এবং শ্লীলতাহানির হুমকি দেয়। পরে চোখে কালো কাপড় বেঁধে গাড়িতে করে ওই স্থানে ফেলে আসে। এই ক্লিনিক আমার বাবার। বাবার জীবনের সব সঞ্চয় দিয়ে এ ক্লিনিক গড়া। লোন শোধ করতে না পারায় ওবায়দুল হক পিন্টুকে শেয়ার দেয়া হয়েছে। আমার বাবাকে এর আগেও নির্যাতন করা হয়েছে। এখন সে অসুস্থ। সেই সুযোগে রাতের অন্ধকারে পুরোটা দখলে নেয়ার এ নোংরা চেষ্টা তারা চালিয়েছে।

এ বর্ণনা দেয়ার সময় অনন্যা তার ও মায়ের ওপর আঘাতের চিহ্নগুলো সাংবাদিকদের দেখান। বাসায় ফিরতে পারলেও আতঙ্ক কাটেনি পরিবারটির। স্থানীয় এমপি একে এম এ আউয়াল নিজে উপস্থিত হয়ে অভয় ও বিচারের আশ্বাস দিলেও এখনও তারা আতঙ্কে ভুগছে। এ সময় এমপি স্থানীয় পুলিশ প্রশাসনকে ডেকে তাদের নিরাপত্তার ব্যাপারে কথা বলেন।

সংসদ সদস্য একেএম এ আউয়াল বলেন, আমারও একটি কন্যা সন্তান আছে। মেয়েটার শরীরে যে দাগ দেখলাম আমি তাতে মর্মাহত। রাতের অন্ধকারে এ কেমন পৈশাচিক আচরণ। এর সাথে যারা জড়িত তাদের বিচার হবে।

এদিকে, এ ঘটনায় জেলা মুক্তিযোদ্ধা ইউনিট কমান্ডার সমীর কুমার বাচ্চু বলেন, এভাবে মধ্যযুগীয় কায়দায় যে পরিবারটিকে উচ্ছেদের পাঁয়তারা করা হলো। আমি এর বিচার চাই।

পিরোজপুর সদর থানায় ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোহাম্মদ মাসুদ উজ জামান বলেন, মামলা হয়েছে তদন্ত সাপেক্ষে ব্যাবস্থা নেয়া হবে। ঘটনায় অভিযুক্ত পিন্টু একজন ব্যবসায়ী। তার একভাই বাংলা সিনেমার নায়ক জায়েদ খান মনু আরেক ভাই পুলিশের ওসি। এলাকায় কথিত আছে নায়ক মনুর পুলিশের অনেক ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের সঙ্গে রয়েছে সখ্য।

এসব ব্যাপারে জানতে চাইলে পিন্টু সাংবাদিকদের বলেন, এসব অভিযোগ মিথ্যা। তাদের কেউ কিছু বলে নাই। নিজেদের শরীরে নিজেরা আঘাত করে এখন সবাইকে দেখাচ্ছে। ২ কোটি টাকা দিয়ে এ ক্লিনিকের অর্ধেক মালিকানা আমি নিয়েছি। এরপরও প্রায় আরও ৮০ লাখ টাকা দিয়েছি। মূলত পুরো মালিকানা এখন আমার।

তবে তিনি কেন এমডির রুম দখল করেছেন এবং নিজের নাম ফলক লাগিয়েছেন সে বিষয়ে কোনো সদুত্তর দিতে পারেননি।

About arthonitee

Check Also

mada

মাদারীপুরে যথাযোগ্য মর্যাদায় স্বাধীনতা দিবস পালিত

এসএম আরাফাাত হাসান: স্বাধীনতা দিবসটি যথাযোগ্য মর্যাদায় উদযাপনের লক্ষ্যে মাদারীপুর জেলা প্রশাসন, পুলিশ প্রশাসন, রাজনৈতিক …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *