প্রচ্ছদ / ব্যাবসা-বাণিজ্য / সার্ক চেম্বার প্রেসিডেন্ট ও এফবিসিসিআই নেতৃবৃন্দের মধ্যে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত

সার্ক চেম্বার প্রেসিডেন্ট ও এফবিসিসিআই নেতৃবৃন্দের মধ্যে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত

এফবিসিসিআই সভাপতি সার্কভূক্ত দেশগুলোর মধ্যকার বাণিজ্য সম্ভাবনা কাজে লাগিয়ে সার্ককে আরও কার্যকর ও গতিশীল করার ওপর গুরুত্ব আরোপ করেছেন। তিনি সার্কভূক্ত দেশগুলোর মধ্যে আলাদাভাবে দ্বিপাক্ষিক এবং বহুপাক্ষিক সম্পর্ক আরও জোরদার করার বিষয়েও জোর দিয়েছেন। সার্ক চেম্বার অব কমার্স এন্ড ইন্ডাস্ট্রি’র (সার্ক সিসিআই) সভাপতি মি. সুরুজ বৈদ্য’র সাথে এক আলোচনায় এফবিসিসিআই সভাপতি জনাব মোঃ শফিউল ইসলাম (মহিউদ্দিন) এসব কথা বলেন। আজ রোববার (১৭-১২-২০১৭) এফবিসিসিআই কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত এ সভায় এফবিসিসিআই প্রথম সহ-সভাপতি শেখ ফজলে ফাহিম, এফবিসিসিআই-এর সাবেক সহ-সভাপতি ও সার্ক চেম্বারের সহ-সভাপতি জনাব মাহবুবুল আলম এবং এফবিসিসিআই পরিচালক জনাব শাফকাত হায়দার, জনাব রেজাউল করিম রেজনু, জনাব তাবারাকুল তোসাদ্দেক হোসেন খান টিটু, জনাব কোহিনুর ইসলাম এবং জনাব আনোয়ার সাদাত সরকার উপস্থিত ছিলেন।

সার্ক চেম্বার অব কমার্স এন্ড ইন্ডাস্ট্রি’র (সার্ক সিসিআই) সভাপতি মি. সুরুজ বৈদ্য সার্ককে আরও কার্যকর ও গতিশীল করার লক্ষ্যে ভারতসহ অন্যান্য সদস্য দেশগুলোকে আরও আন্তরিকতার সাথে কাজ করার আহ্বান জানান। মি. বৈদ্য আগামি ১৬-১৮ মার্চ ২০১৮ নেপালে অনুষ্ঠেয় ‘সার্ক বিজনেস লিডার্স কনক্লেভ’-এ এফবিসিসিআই সভাপতির নেতৃত্বে সংগঠনের একটি প্রতিনিধিদলকে অংশগ্রহণের আমন্ত্রণ জানান। সার্ককে সাধারণ মানুষের মাঝে আরও পরিচিত করে তুলতে এ অনুষ্ঠান উপলক্ষে সার্কভূক্ত দেশগুলোতে ‘মিউজিকাল কনসার্ট’ আয়োজন করা হবে বলেও তিনি উল্লেখ করেন। সার্ক সিসিআই সভাপতি এক্ষেত্রে এফবিসিসিআই নেতৃবৃন্দের সহযোগিতা কামনা করেন।
এফবিসিসিআই সভাপতি জনাব মো: শফিউল ইসলাম (মহিউদ্দিন) সভায় বলেন যে, সার্কের সদস্য দেশগুলোর মধ্যে আনÍ:বাণিজ্যের যে বিপুল সুযোগ রয়েছে তার সদ্ব্যবহারে দেশগুলোকে কার্যকর উদ্যোগ নিয়ে এগিয়ে আসা প্রয়োজন। এফবিসিসিআই সভাপতি আন্ত:বাণিজ্যে বিদ্যমান বাঁধাসমূহ দূরীকরণের ওপর জোর দেন। এছাড়াও সম্ভাবনার নিরিখে সদস্য দেশগুলোর মধ্যে ‘দ্বিপাক্ষিক বাণিজ্য’ এবং ‘বহুপাক্ষিক বাণিজ্য’র উদ্যোগ নেয়া দরকার বলে এফবিসিসিআই সভাপতি উল্লেখ করেন।
উল্লেখ্য যে, ২০১৬-২০১৭ অর্থবছরে বাংলাদেশ তার মোট রপ্তানির ২.৪% সার্কভূক্ত দেশগুলোতে রপ্তানি করেছে, যা অর্থমূল্যে ০.৮৩ বিলিয়ন মার্কিন ডলার। অপরদিকে বাংলাদেশ একই সময়ে সার্কভূক্ত দেশগুলো থেকে ৬.৭৪ বিলিয়ন মার্কিন ডলারের পণ্য আমদানি করেছে, যা দেশটির মোট আমদানির ১৪.৩৪%।

About arthonitee

Check Also

শেয়ার দিয়ে এনআরবি ব্যাংকের ঋণ পরিশোধ করলো সুহৃদ

নিজস্ব প্রতিবেদক এনআরবি ব্যাংকের কাছ থেকে নেয়া ঋণের অর্থ শেয়ার দিয়ে পরিশোধ বা সমন্বয় করেছে …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *