প্রচ্ছদ / মিডিয়া কর্নার / মুকসুদপুর সংবাদ পথ চলার ১৮ বছর

মুকসুদপুর সংবাদ পথ চলার ১৮ বছর

16  Nov  2017  M Sangbad DeMay.qxd

মেহের মামুন

“পাক্ষিক মুকসুদপুর সংবাদ” এলাকার জনগণের সুখ দুঃখের মূখপত্র। মুকসুদপুরের সর্বসাধারণের পাশে রয়েছে ১৮ বছর। ১ নভেম্বর সংখ্যা প্রকাশের মধ্য দিয়ে ১৯তম বর্ষে পর্দাপণ করল। দীর্ঘ এই পথচলার মধ্য দিয়ে নানান প্রতিকূলতার সম্মুখিন হয়েছে। সুনাম, দুর্নাম, আলোচনা, সমালোচনার সকল দায়ভার কাধে নিয়ে হাটি হাটি পা পা করে আঠেরটি বছর পার হল। তারপরও থেমে যায়নি পথচলা। বীরদর্পে পথ চলেছে উপজেলার সর্বস্তরের মানুষের কথা ভেবে। নিয়মিত প্রকাশেও বিলম্ব হয়নি। প্রতি সংখ্যার কাগজ নির্ধারিত নিয়মে নির্ধারিত তারিখে পৌছে গেছে পাঠকের দোড়গড়ায়। সংবাদপত্রের অপেক্ষায় থাকে উপজেলার প্রায় সকল পাঠক। কি আছে প্রকাশিত সংখ্যায়। চমকপ্রদ খবর কি থাকবে, আকর্ষণীয় ঘটনা, মানুষের আকাক্সক্ষা, প্রাপ্তি ইত্যাদি। এ একটা অপেক্ষা বটে। দীর্ঘ ১৫ দিনের অপেক্ষা শেষে পত্রিকা হাতে পেয়ে উচ্ছসিত হয় পাঠকের মন। পত্রিকা প্রকাশের তারিখে অফিস থাকে সরগরম। সারাদিন পাঠকের আনাগোনা। কেউ আসে অফিসে বসে পত্রিকা পাঠের জন্য আর কেউ আসে পত্রিকার কপি নিতে। পত্রিকা বাজারে আসার পর থেকে পাঠকের মধ্যে, পথেঘাটে, দোকানে, বাজারে বিভিন্ন অফিসসহ নানা প্রতিষ্ঠানে চলে পত্রিকা নিয়ে আলোচনা পর্যালোচনা। পরবর্তী সংখ্যা পর্যন্ত চলে এই গুঞ্জন। পাঠকের ভাললাগা ভালবাসার বড় উপহার মুকসুদপুর সংবাদ এর জনপ্রিয়তা ও চাহিদা। মুকসুদপুর উপজেলার সর্বসাধারনের সকল চাহিদা তথা -সাহিত্য প্রেমী, ক্রিড়ামোদি, শিক্ষানুরাগী, জ্ঞানপিপাসু সকলেরই প্রত্যাশা পূরণের লক্ষ্যে কাজ করে যাওয়াই লক্ষ্য। এছাড়াও সমাজের সর্বস্তরের জনগণের জীবনযাত্রা, শিক্ষা সংস্কৃতি ও রাজনৈতিক অবস্থাকে সার্বজনিন করে তুলে ধরে প্রতি সংখ্যাকে সাজানো হয়। সমাজে নানান শ্রেণী পেশার মানুষ বাস করে। তাই চাহিদা ভিন্ন ভিন্ন। বলতে গেলে চলে কারও চাহিদার সাথে কারও মিল নেই। প্রত্যেক পাঠকই তার নিজ চাহিদার প্রাধান্য দিয়ে থাকেন। আমাদের চেষ্টা থাকে পত্রিকাকে পাঠকের চাহিদামাফিক পরিপূর্ণ করতে। যাই হোক চাওয়া আর পাওয়ার মাঝে ঘাটতি থাকলেও “মুকসুদপুর সংবাদ” পরিবারের সর্বাত্মক চেষ্টা থাকে পাঠকের চাহিদামত কাজ করে যাওয়া। “মুকসুদপুর সংবাদ” পরিবারে উপজেলার পৌারসভাসহ ১৬ ইউনিয়নে রয়েছে একঝাক সৎ পরিশ্রমী সংবাদকর্মী। তাদের নিরলস প্রচেষ্টায় সংগ্রহকৃত খবর দিয়ে পত্রিকা তার আপন সাজে সেজে ওঠে প্রতি সংখ্যায়। যার ফলপ্রসূত আজ আমরা এগুতে পারছি। পাঠকের চাহিদা পূরনের সর্বাত্মক চেষ্টা আমাদের কাম্য। সম্পাদক হায়দার হোসেনের নিরলস প্রচেষ্টা, সম্পাদকীয় পর্যবেক্ষন, সিয়ির-জুনিয়র কর্মীদের সংবাদ সংগ্রহের তুখোড় মনোভবসহ পত্রিকা পরিবারের সকলের সর্বোচ্চ প্রচেষ্টার ফসল আজকের মুকসুদপুর সংবাদ। প্রতি সংখ্যার পত্রিকা পাঠকের দোড়গোয় পৌছানোর কাজটা দীর্ঘ এই পথচলার পেছনেও তাদের অনেক ভূমিকা রয়েছে। ঝড় বৃষ্টির মধ্যেও প্রতি সংখ্যা সঠিক সময়ে পৌছে দেয়র কাজে সোহরাব হোসেনের ভূমিকাও প্রশংসনীয়। পত্রিকার পাঠক, বিজ্ঞাপনদাতা ও সকল শুভানুধায়ীদের সহযোগিতায় আমরা এগিয়ে যেতে চাই বহুদূরে। ১৯তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী অনাড়ম্বর উদযাপনে নিজস্ব কার্যালয়ে নির্ধারিত তারিখে সকলের মিলন মেলা অনুষ্ঠিত হয়েছে, সকলের সবান্ধব উপস্থিতি প্রাণবন্ত করেছে।

(দৈনিক অর্থনীিতির কাগজ এর গোপালগঞ্জ জেলা প্রতিনিধি সরদার মজিবুর রহমান এর অনুরোধে মুকসুদপুর সংবাদ এর মেহের মামুন কর্তৃক লেখাটি প্রকাশিত হল )

About arthonitee

Check Also

pic

ঢাকায় গাড়িমুক্ত সড়কের যাত্রা শুরু

গণপরিবহন ব্যবস্থার উন্নয়ন ও ব্যক্তিগত গাড়ির ব্যবহার নিয়ন্ত্রণে আনার মাধ্যমে পরিবেশ, স্বাস্থ্য এবং অর্থনৈতিক উন্নয়ন …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *